কবিতা২ঃ- স্মৃতির পটে জল্লার হাট আব্দুর রহিম

স্মৃতির পটে জল্লার হাট
আব্দুর রহিম 
♡♡♡♡♡♡♡♡♡
বাপ দাদারা বাজার করেছে 
আমি ও করেছি বটে ,
কালের গর্ভে বিলীন হয়েছে 
স্মৃতি রয়েছে পটে ।
নেই সেখানে দোকান পাট 
নেই দোকানের সারি ,
বিলীন হয়ে সেখানে উঠেছে 
কিষানের ঘর বাড়ি ।

কিষাণ করে মাঠে ঘাটে কাজ
কিষানের বউ ঘরে ,
সুখে দুঃখে বসত করে 
সারাটি বছর ধরে ।
হাটের মাঝে বুড়ো বটগাছ
কালের সাক্ষী হয়ে ,
শুধালো আমারে কতো ব্যথা তার
গতর গিয়েছে ক্ষয়ে ।

শাপলা শালুক ফোটে না আর
স্বচ্ছ দিঘীর জল ,
বুনো হাঁসেরা উড়ে এসে তাই
করে কতো কোলাহল ।
টেংরা পুঁটি পাবদা বোয়াল 
শোল গজালের পোনা ,
আগের মতো নেই দিঘীতে
করে না আনাগোনা ।

দিঘীর পাশে তাল ভিটাতে
নেইতো তালের সারি ,
আদম কাকু তালগাছ কেটে 
ভরতো রশের হাড়ি ।
নেই তালগাছ বুনোবন আর
শিয়ালের হুয়াক্কা ডাক ,
মেহগনি চাম্বল লাগিয়ে সেথায় 
বানিয়েছে নুতন বাগ ।

ঝিড়ি ঝিড়ি বয় দখিনা 
হাওয়া 
নানান পাখির ডাকে ,
নয়ন জুড়িয়া নিদ্রা আসে 
কিযে তার অনুরাগে ।
পাশে উঠেছে জামে মসজিদ 
ফজর নামাজ শেষে ,
সোনা মনিরা কোরআন পড়ে 
দেখেছি সেথায় এসে ।

কিযে ভালোলাগে সে সুর আমার 
কারবা কাছে কই ,
কালের গর্ভে হাড়িয়ে গেলেও 
স্মৃতি নিয়ে বেঁচে রই ।

01/07/2019

জল্লার হাট যে এস্থান নিয়ে কবিতা লেখা হয়েছে ওই জায়গার কিছু ছবি